সরকারি কর্মচারীদের যেভাবে বাড়ছে বেতন - ভাতা - protidinislam.com | protidinislam.com |  
অর্থনীতি

সরকারি কর্মচারীদের যেভাবে বাড়ছে বেতন – ভাতা

  প্রতিনিধি ২৬ মার্চ ২০২৩ , ৭:১৩:১২ প্রিন্ট সংস্করণ

Spread the love

ইসলাম ডেস্ক: দেশে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা এখন প্রায় ২০ লাখ। এই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য সরকার সবশেষ জাতীয় বেতন-স্কেল ঘোষণা করে ২০১৫ সালে।

যা এখনও বলবৎ। দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে কথা থাকলেও সরকারি-কর্মচারীদের জন্য এখনি কোনো বেতন কিংবা মহার্ঘ্য ভাতা বাড়ানোর উদ্যোগ নিতে পারছে না সরকার।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বলছে, গ্রেড অনুযায়ী কর্মচারীদের জন্য কয়েক খাতে ভাতার পরিমাণ বাড়ানো হচ্ছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, সবকিছু ঠিক থাকলে কয়েকটি গ্রেড বিবেচনায় নিয়ে সেই গ্রেডে কর্মরত কর্মচারীদের টিফিন ভাতা ও সন্তানদের শিক্ষা ভাতার পরিমাণ বাড়ানো হতে পারে। আশা করা হচ্ছে আসছে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের বাজেটেই এর প্রতিফলন ঘটবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রানুযায়ী, গত ২৪ থেকে ২৬ জানুয়ারি ঢাকাতে অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসক সম্মেলনে ১১ গ্রেড থেকে ২০ গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদের টিফিন ভাতা বাড়ানোর পক্ষে প্রস্তাব তুলে ধরেন ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক ফারাহ গুল নিঝুম।

আর সরকারি চাকরিজীবীদের সন্তানদের জন্য প্রদেয় শিক্ষাসহায়ক ভাতা, সরকারি কর্মচারীদের চিকিৎসাভাত বাড়ানোর প্রস্তাব করেন নরসিংদী জেলা প্রশাসক নঈম মোহাম্মদ মারুফ।

ওই দুই জেলা প্রশাসকের প্রস্তাব আমলে নিয়ে সরকারি চাকরিজীবীদের চিকিৎসা ভাতা, ১১ থেকে ২০ গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদের টিফিন ভাতা আর কর্মচারীদের সন্তানদের জন্য শিক্ষা ভাতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলা প্রশাসক সম্মেলনে উঠে আসা এ সব প্রস্তাব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে অর্থবিভাগকে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। আর বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে অর্থ বিভাগ।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে আরও জানা গেছে, ১১ থেকে ২০ গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদের চিকিৎসাভাতা ১৫০০ থেকে বাড়িয়ে ২৫০০ টাকা, দুই সন্তানের জন্য শিক্ষাভাতা ১ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে দুই হাজার টাকা, গ্রেডভিত্তিক কর্মচারীদের জন্য টিফিন ভাতা বাড়ানো হবে দ্বিগুণ।

এ প্রসঙ্গে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসক সম্মেলন থেকে আসা প্রস্তাবের মধ্যে যেগুলো যৌক্তিক সেগুলো নিয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা করে বাস্তবায়ন করব।

আর যেগুলো এখন না করলেও চলবে, ভবিষ্যতের জন্য করতে হবে- এমন প্রস্তাব নোট করে রেখেছি। যে কোনো ভালো পরামর্শকে আমরা সাধুবাদ জানাই। আমরা বিনিয়োগ তখনই করব, যখন তার কাছ থেকে রিটার্ন ভালো আসবে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা দক্ষ, শিক্ষিত এবং কাজের প্রতি সৎ এমন একটি প্রশাসন গড়ে তুলতে চাই। তাদের জীবনমানের উন্নতির বিষয়ে সরকার চিন্তা করছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ইচ্ছার অভাব নেই। সরকারি কর্মচারীদের জন্য গাড়ির, বাড়ির জন্য সহজ শর্তে লোনের ব্যবস্থা এরই মধ্যে রাখা আছে। রয়েছে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও।’

তিনি বলেন, ‘আমরা একটি দক্ষ জনবল তৈরি করতে চাই। সে জন্য এদের প্রশিক্ষণ, মোটিভেশন দরকার।’

উল্লেখ্য, এর আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জাতীয় সংসদকে জানিয়ে ছিলেন, করোনা পরবর্তী বৈশ্বিক মন্দা, যুদ্ধ আর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে মূল্যস্ফীতি দেখা দিয়েছে। যার প্রভাব বাংলাদেশে পড়েছে।

এ সব মোকাবিলায় নানা পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে সরকারি কর্মচারীদের জন্য নতুন পে-স্কেল বা মহার্ঘ্য ভাতা দেওয়া কোনোভাবে সম্ভব নয়। তবে এ বছর সরকারি কর্মচারীদের কিছু আর্থিক সুবিধা দেওয়ার কথা বিবেচনায় নিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

আরও খবর

Sponsered content

ENGLISH