পীরে পীরে দন্দ্ব, এক পীরকে দাফন না করতে আরেক পীরের রিট - protidinislam.com | protidinislam.com |  
অপরাধ

পীরে পীরে দন্দ্ব, এক পীরকে দাফন না করতে আরেক পীরের রিট

  প্রতিনিধি ৩ জানুয়ারি ২০২২ , ৭:৩১:২৭ প্রিন্ট সংস্করণ

Spread the love

ইসলাম ডেস্কঃ রাজধানীর সেগুনবাগিচার পাঞ্জেরিয়া দরবার শরীফের জায়গায় পীর ইয়াহিয়া হাসানের মরদেহ দাফন না করতে হাইকোর্টে রিট করেছেন গদ্দিনাশিন পীর সৈয়দ মো. ইয়ামিনুল হাসান চিশতী।

বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে সোমবার রিটটি দায়ের করা হয়।

পীর হাসান চিশতীর পক্ষে ব্যারিস্টার এম. আতিকুর রহমান রিটটি দায়ের করেন।

রিট সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালে দিল্লির খাজা নিজামউদ্দিন আওলিয়া দরবার শরীফ থেকে খেলাফতপ্রাপ্ত হয়ে হাসান চিশতী পাঞ্জেরিয়া দরবার শরীফে পীরের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

এরমধ্যে গত ২৪ ডিসেম্বর তার আপন চাচা দিল্লি থেকে খেলাফতপ্রাপ্ত সৈয়দ ইয়াহিয়া হাসান মারা যান। ইয়াহিয়ার অনুসারীরা তার মরদেহ দরবার শরীফে দাফন করার উদ্যোগ নেন।

এতে বাধাপ্রাপ্ত হলে তারা ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন। এরপর ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বিবাদমান দুই পক্ষকে ডেকে ইয়াহিয়া হাসানের মরদেহ দরবার শরীফের জায়গায় দ্রুত দাফন করতে বলেন।

এরপরও এর বিরোধিতা করেন পীর হাসান চিশতী। বলেন, এই জায়গায় দাফন করলে লিজের শর্ত ভঙ্গ হবে।

কারণ ১৯৭৯ সালে ঢাকা জেলা প্রশাসক সেগুনবাগিচার দরবার শরীফের জায়গাকে শুধু ধর্মীয় উপাসনার কাজে ব্যবহারের জন্য শর্তসাপেক্ষে লিজ দিয়েছিলেন। তাই এখানে দাফন করা সম্ভব নয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ওই জায়গায় দাফনের জন্য চাপ প্রয়োগ করলে ৩০ ডিসেম্বর ঢাকা জেলা প্রশাসকের কাছে এর বিরুদ্ধে আবেদন করেন হাসান চিশতী।

জেলা প্রশাসক ওই আবেদনটি নিষ্পত্তি না করায় হাসান চিশতী হাইকোর্টে গিয়ে রিট করেন।

রিটে জেলা প্রশাসকের কাছে দেওয়া আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। এছাড়াও লিজ করা জায়গার ওপর স্থিতাবস্থা চাওয়া হয়।

রিটে ভূমি সচিব, ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার, ঢাকার জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও ওসি রমনাকে বিবাদী করা হয়েছে।

আরও খবর

Sponsered content

ENGLISH